| |

ফুলবাড়ীয়ায় বাল্য বিবাহ থেকে মুক্তি পেল নবম শ্রেণীর ছাত্রী

ফুলবাড়ীয়া ব্যুরো অফিস ঃ উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন সুলতানার হস্তক্ষেপে বাল্য বিবাহ থেকে রক্ষা পেল উপজেলার হরেকৃ ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্রী সামিয়া আফরিন (১৫)। পূর্ব নির্ধারিত দিন তারিখ শুক্রবার বিবাহের দিন ফাইনাল ছিল। গতকাল শুক্রবার বিয়েরদিন সকালে ইউএনও শারমিন সুলতানা পুলিশ নিয়ে কনের বাড়ী উপস্থিত হয়ে মেয়ে, মেয়ের পিতা, মাতা কে আটক করে নিয়ে আসে।
গতকাল উপজেলার পশ্চিম কালিবাজাইল গ্রামের আহমদ আলীর কন্যার সাথে পাশ্ববর্তি ইউনিয়নের বালাশ্বব গ্রামের বাছির উদ্দিনের পুত্র ফুলবাড়ীয়া বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের ছাত্র আমিরুল ইসলাম মিন্টু সাথে আনুষ্ঠানিক ভাবে বিয়ের আয়োজন করেন।
বৃহস্পতিবার সামিয়ার স্কুলের বান্ধবিরা ইউএনও কে ঘটনাটি জানালে তিনি বিয়ে বাড়িতে উপস্থিত হয়ে বিয়ে ভেঙ্গে দিয়ে মেয়ের অভিভাবক আহমদ আলীকে আটক করে জরিমানা করেন।
পরে হরেকৃষ্ণ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোলাম রব্বানী ও মেয়ের অভিভাবকরা সামিয়ার বয়স পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দিবে না মর্মে লিখিত দিলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন সুলতানা মেয়েটিকে প্রধান শিক্ষকের জিম্মায় দেন এবং ১৯২৯ সনের বাল্য বিবাহ বিরোধ আইনে ৬-ধারা মতে অভিভাবককে সর্বোচ্চ জরিমানা করেন।