| |

জামালপুরে ৪৮০টি প্রাথমিক শিক্ষক ঈদে বেতন বঞ্চিত॥ শিক্ষক পরিবারের মানবেতর জীবন যাপন

জামালপুর প্রতিনিধি॥জামালপুর জেলার ৭টি উপজেলায় ৪শ ৮০টি শিক্ষক দীর্ঘ দিন যাবত বেতন পাচ্ছে না। ফলে পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন। আসছে আগামী ঈদের খুশী তাদের ম্লান হয়ে যাবে। শিক্ষা সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা যায়, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রনালয়ের অধীনে গত ২০১৪ইং সালের জুলাই মাসে দ্বিতীয় ধাপ এবং ২০১৫ইং সালের জানুয়ারী মাসে তৃতীয় ধাপে সারা দেশে ন্যায় জামালপুর জেলায় ১শ ২০টি বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়কে সরকারী জাতীয়করণ করা হয়। এসব বিদ্যালয়ে গুলোতে ৪জন করে মোট ৪শ ৮০জন শিক্ষক বর্তমানে কর্মরত আছেন। বিদ্যালয় গুলোতে সরকারী নিয়মানুযায়ী সকল প্রকার কাজকর্ম পরিচালিত হলেও দীর্ঘ দিন পেরুলে এসব শিক্ষকদের গেজেট ভুক্তি করা হয়নি। ফলে সরকারী বেতন থেকে বঞ্চিত হয়ে তারা পরিবার-পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করে আসছেন। এব্যাপারে চরপাকেরদহ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক সামিউল হক, বঙ্গবন্ধু সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক আসাদুজ্জামান এবং নলছিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক রফিকুল ইসলাম আক্ষেপ করে বলেন, আমাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সরকারী হয়েছে, শিক্ষার্থীরা সরকারী স্কুলে পড়া-লেখা করছে, শিক্ষার মান বৃদ্ধি পেয়েছে। অথচ আমরা কর্মরত শিক্ষকগন সরকারী চাকুরীজীবি হতে পারিনি। শুধু না পেয়ে, না খেয়ে, মেধা আর শ্রম দিয়ে, জাতি গঠনের কাজ করছি। বিনিময় আমরা পরিবার-পরিজন নিয়ে মানবেত জীবন যাপন করে আসছি বলে উল্লেখ করেন।
অপর দিকে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো.আব্দুল আলীমের কাছে এবিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, জামালপুরে ১২০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সরকারী করণ করা হয়েছে। কিন্তু কর্মরত শিক্ষকদের এখনও গেজেট ভুক্তি না করায় তারা বেসরকারী রয়েগেছেন। তাই তাদের বেতন দেওয়া যাচ্ছে না। গেজেট ভুক্তি করা হলে বেতন দেয়া সম্ভব হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।