| |

বিয়ে করতে এসে বর গেলেন জেল হাজতে, কনে ও বরের বাবাকে অর্থদ- ধর্মপাশায় বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা পেল এক স্কুল ছাত্রী

ধর্মপাশা প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলার হাওর এলাকার একটি গ্রামে সরকারি আইন লঙ্ঘন করে বাল্য বিয়ের আয়োজন করার দায়ে গতকাল শনিবার বিকেলে নয়ন মিয়া (১৮) নামের এক বরকে সাতদিনের কারাদ- এবং কনে ও বরের বাবাকে এক হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে দুইদিন করে কারাদ- দিয়েছেন ভ্রাম্যামাণ আদালত। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী হাকিম মোহাম্মদ নাজমুল হক এই আদালত পরিচালনা করেন।
উপজেলা প্রশাসন ও স্থানীয় এলাাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণিতে পড়–য়া এক স্কুল ছাত্রীর (১১) এর সঙ্গে গতকাল শনিবার বেলা দুইটার দিকে কিশোরগঞ্জ জেলার অষ্টগ্রাম উপজেলার অষ্টগ্রাম গ্রামের জামাল মিয়ার ছেলে নয়ন মিয়া (১৮) এর সঙ্গে বিয়ের আয়োজন করা হয়। স্থানীয় সাংবাদিকদের মাধ্যমে খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ নাজমুল হক ঘটনার সত্যতা জানতে ও বাল্য বিয়ের আয়োজন বন্ধ করতে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয়ের উপসহকারী প্রকৌশলী মাহমুদুল হাসান ও ধর্মপাশা থানার এএসআই সাইফুর রহমানকে সেখানে পাঠান। ওইদিন বেলা একটার দিকে তাঁরা ওই ছাত্রীর বাড়িতে গিয়ে বাল্য বিয়ের আয়োজন দেখতে পান । এ সময় তারা ওই বিয়ের আয়োজন বন্ধ করে দেন। পরে সেখান থেকে বর নয়ন মিয়া (১৮),কনের বাবা শহীদ মিয়া (৬৬) ও বরের বাবা জামাল মিয়া (৫০) আটক করে সেখান থেকে উপজেলা সদরে নিয়ে আসা হয় । বিকেল সাড়ে চারটার দিকে তাঁদেরকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করা হলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বরকে সাতদিনের বিনাশ্রম কারাদ-, বর ও কনের বাবাকে এক হাজার টাকা করে অর্থদ- অনাদায়ে দুইদিনের করে কারাদ-ের আদেশ দেন।
ধর্মপাশা থানার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) সাইফুর রহমান জানান, বর নয়ন মিয়াকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। বর ও কনের পিতাকে জরিমানার টাকা পরিশোধ করায় তাঁরা সেখান থেকে মুক্তি পেয়েছেন।