| |

ভালুকায় গুচ্ছগ্রামের ৫ কোটি টাকা মূল্যের জমি কোম্পানীর দখলে

নিজস্ব সংবাদদাতা ঃ ভালুকায় গুচ্ছগ্রামের প্রায় ৫ কোটি টাকা মূল্যের জমি অবৈধ ভাবে দখলে নিয়ে বহুতল ভবন নির্মাণ করেছে এক কোম্পানী কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনায় ওই কোম্পানীর বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে মামলা দায়ের করা হয়েছে।
সরেজমিন খোঁজ নিয়ে স্থানীয় জনধারণ ও বনবিভাগ ও ভূমি অফিস সূত্রে জানা যায়, উপজেলার জামিরদিয়া মৌজার ৩৩ নম্বর দাগে বন বিলাস আবাসন প্রল্পের (গুচ্ছগ্রাম) নামে সরকার এক একর ৪৭ শতাংশ জমি বরাদ্দ দেন। যার বর্তমান বাজার মূল্য প্রায় ৫ কোটি টাকা। সম্প্রতি স্থানীয় নারিশ পোল্ট্রি ফিস ফিড লিমিটেড কর্তৃপক্ষ ওই জমিটি অবৈধ দখলে নিয়ে সীমানাপ্রাচীর নির্মাণ করে বহুতল ভবন নির্মাণ করেছেন। ওই দাগে মোট জমি রয়েছে, ১শত ৪৭ একর ২৩ শতাংশ। এর মাঝে বন বিভাগের রয়েছে, ১০ একর, রেকর্ডকৃত ৪৮ একর ৭৬ শতাংশ, খাস খতিয়ানভূক্ত ৮৫ একর ৩৭ শতাংশ, বন্দোবস্ত ৪ একর ৭০ শতাংশ জমি রায়েছে। এর মাঝেই বন বিলাসের নামে এক একর ৪৭ শতাংশ জমি রয়েছে।
এলাকাবাসি জানান, ওই ভবনের স্থানে বন আবাসন প্রকল্পের সাইনবোর্ড টানানো ছিল। ওই সাইনবোর্ডের বর্তমানে কোন অস্তিত্য নেই, শুভা পাচ্ছে কোম্পানীর বহুতল ভবণ। তাছাড়া ওই কোম্পানী কর্তৃপক্ষ বন বিভাগের জমিসহ প্রায় শত কোটি টাকা মূল্যের সরকারী খাস খতিয়ানের জমিও দখলে নিয়ে সীমাণা প্রাচীর নির্মাণ করেছেন।
স্থানীয় ব্যবসায়ী রিয়াজ আহমেদ জানান, কোম্পানী কর্তৃপক্ষের এসব অনৈতিক কাজের ব্যাপারে প্রতিবাদ করলে স্থানীয় দালালদের দিয়ে বিভিন্ন ভাবে হয়রানী করে থাকে এমনকি মিথ্যে মামলার হুমকীও দেয়া হয়।
নারিশ পোল্ট্রি ফিস ফিড লিমিটেডের এজিএম গণেশ চন্দ্র রায় বলেন, বিষয়টি কোম্পানীর যারা জমি কেনা বেচা করেছেন তারাই ভাল বলতে পারবেন।
উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আফরোজা আক্তার জানান, এ ব্যাপারে নারিশ কোম্পানীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং মামলাটি বর্তমানে আইনি প্রক্রিয়ায় উচ্চ আদালতে রয়েছে। কিন্তু কোম্পানী কর্তৃপক্ষ বার বার স্টে-অর্ডার নিয়ে এসে কালক্ষ্যাপন করছেন।