| |

কালিহাতির ঘটনায় মামলার প্রধান আসামি হওয়া উচিত পুলিশের : সুরঞ্জিত

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক : আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলেছেন, ‘কালিহাতিতে কি এমন ঘটলো যে পুলিশের গুলি চালাতে হলো। আবার মামলা দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে। কালিহাতির ঘটনায় মামলার প্রধান আসামি হওয়া উচিত পুলিশের।
গতকাল সোমবার রাজধানী সেগুনবাগিচার শিল্পকলা একাডেমীর হলরুমে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
সুরঞ্জিত বলেন, প্রকৃত ঘটনার তদন্ত করে দোষী পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে।’
তিনি বলেন, ‘মাছ দিয়ে তো শাক ঢাকা যায় না। ওসি সাহেব বললেন, ইন্ধন ছিল। এ ঘটনায় কার ইন্ধন আছে, কিভাবে আছে সেটা আপনারা খুঁজে বের করুন। আর সেখানে কোন ম্যাজিস্ট্রেট ছিল? পুলিশ কার নির্দেশে গুলি চালিয়েছে সেটাও বের করার দায়িত্ব পুলিশের। এর দায়ভার কোনো গণতান্ত্রিক সরকার নিতে পারে না।’
এ সময় পাশে বসে থাকা সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকুকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ‘পুলিশের গুলি চালাতে গেলে কার নির্দেশের দরকার হয়, উনি বলুক। মানুষ সব বোঝে ও জানে।’
সুরঞ্জিত বলেন ‘যদি মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস হয়ে থাকে তবে আবার সেই পরীক্ষা নেওয়া হোক।’
তিনি বলেন, ‘অভিযোগ উঠলো আর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কয়েকজনকে গ্রেফতার দেখালো। এটা যদি ঠিক থাকে তবে কিভাবে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সেই পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করে? দুই মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর বিষয়টি ভাবা উচিত। একই সঙ্গে নাসিমের মতো একজন অভিজ্ঞ মন্ত্রী থাকার পরও এমন অভিযোগ জাতি আশা করে না।’
আওয়ামী লীগের এই প্রবীণ নেতা বলেন, ‘অনেক দিন পরে মা-ছেলের (খালেদা জিয়া-তারেক রহমান) সাক্ষাৎ হয়েছে, ভালো কথা। আমাদের আশা, খালেদা জিয়া গণতন্ত্রের পথে ফিরে আসবেন। কিন্তু এই লন্ডন সফরে ছেলের কাছ থেকে কূটবুদ্ধি নিয়ে তিনি আরও উগ্রভাবে রাজনীতিতে আবির্ভূত হবেন বলেই মনে হচ্ছে।’
সম্প্রতি সরকারি চাকুরীজীবীদের বেতন স্কেলের প্রশংসা করে তিনি বলেন, ‘এটা অবশ্যই সরকারের সাহসী পদক্ষেপ। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা যে বিষয়টি নিয়ে আন্দোলন করছেন তা প্রধানমন্ত্রীর জাতিসংঘ সফরের আগেই আলোচনার মাধ্যমে দ্রুত সমাধান করা উচিত। আর সরকারের মধ্যেই সমস্যা সৃষ্টি করতে জমির উদ্দিনের মতো কোনো সরকার ঢুকে পড়েছে কি না— তাও দেখতে হবে।’
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘের পরিবেশ বিষয়ক পুরস্কার ‘চ্যাম্পিয়ন অব দ্য আর্থ’ পাওয়ায় সভা থেকে তাকে অভিনন্দন জানানো হয়।
সংগঠনের ঢাকা বিভাগীয় সভাপতি মাকসুদুর রহমান মাকসুদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন- সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এ্যাডভোকেট শামসুল হক টুকু, আওয়ামী লীগের উপ-কমিটির সহ-সম্পাদক শাহজাহান আলম সাজু, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ড. আখতারুজ্জমান, আয়োজক সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক অরুণ সরকার রানা প্রমুখ।