| |

বিপিএল : ময়মনসিংহের রফিক উদ্দিন ভুইয়া স্টেডিয়াম-মোহামেডান ও বিজেএমসি ১-১ গোলে ড্র

স্টাফ রিপোর্টার ॥ মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব আশা জাগিয়েও ভক্তদের আশাহত করলো। অধিনায়ক তৌহিদুল ইসলাম সবুজ প্রথমার্ধের একেবারে শেষ মুহূর্তের গোলে ম্যাচের ৭২ মিনিট পর্যন্ত এগিয়ে থাকলেও বিজেএমসির  মুখলেছুর রহমান মুকুলের গোলে প্রিমিয়ার লিগের এবারের আসরে দলটির জয়ের স্বপ্ন ভঙ্গ হয়। ফলে ম্যাচ শেষে ১-১ এ সমতা নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় মোহামেডান ঢাকার কোচ কাজী জসিম উদ্দিন জসির শিষ্যদের।
এটি মোহামেডান ও টিম বিজেএমসির তৃতীয় ড্র। গতকাল রবিববার (৭ আগস্ট) জেবি প্রিমিয়ার লিগের এবারের মৌসুমের প্রথম জয় পেতে ময়মনসিংহের বীর মুক্তিযোদ্ধা রফিক উদ্দিন ভূঁইয়া স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হয় পয়েন্ট টেবিলের ৯ নম্বর দল টিম বিজেএমসি ও ১০ নম্বরে থাকা মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব।
তবে কিক-অফের পর থেকেই স্বরূপে খুঁজে পাওয়া যায়নি দেশের ঐতিহ্যবাহী মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবকে। অগোছালো আক্রমণ, আক্রমণভাগের ফিনিশিং ব্যর্থতা ও ভুল পাস হতাশায় ডুবিয়েছে সাদা-কালো সমর্থকদের।
পক্ষান্তরে, প্রতিপক্ষ টিম বিজেএমসি ছিল বেশ গোছালো। ছোট ছোট পাস ও গতিময় খেলা উপহার দিয়ে উপস্থিত দর্শকদের মধ্যে উল্লাসের খোরাক যুগিয়েছে। যদিও ময়মনসিংহের মাটিতে বিজেএমসির দর্শক তেমন ছিলনা।
এমনই গতিময় খেলার ধারাবাহিকতায় ৯ মিনিটে মোহামেডান গোলবারের ডান দিক থেকে স্যামসন ইলিয়াসু ক্রস তুলেছিলেন কিন্তু সতীর্থ সোহেল রানা তা কাজে লাগাতে পারেননি।
চার মিনিট পরে আবারো মোহামেডানের রক্ষণভাগে হানা দেন ইলিয়াসু। মাঝমাঠ থেকে একাই বল নিয়ে পোষ্টের বাঁ দিক থেকে কাটব্যাক দিয়েছিলেন সোহেল রানাকে। এবারও ব্যর্থ হলেন সোহেল। কিছুটা নিচু হয়ে আসা বলটিকে পারলেন না মাথার ছোঁয়ায় জালে চুমু খাওয়াতে।
টিম বিজেএমসির ধারালো আক্রমণের মুখে ম্লান মোহামেডানকে অবশেষে খুঁজে পাওয়া গেল প্রথমার্ধের অতিরিক্ত সময়ে। তবে যেন তেন কোন আক্রমণ নয় একেবারে গোলসূচক।
মাঝমাঠ থেকে অধিনায়ক তৌহিদুল আলম সবুজ একাই বিজেএমসি গোলবারের ডান দিক দিয়ে বল নিয়ে গোলরক্ষক হিমেলের অবস্থান দেখে জোড়ালোভাবে কোনাকুনি প্লেসিং শটে জালে বল ঠেলে দিলে ১-০ তে এগিয়ে যায় মোহামেডান। ফলে পুরো প্রথমার্ধ ভালো খেলেও পিছিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় টিম বিজেএমসি।
বিরতি থেকে ফিরে আক্রমণের ধার বাড়ায় বিজেএমসি। আর তাতে দলটি ফলও পেয়ে যায়। ৭২ মিনিটে বদলি খেলোয়াড় আব্দুল্লাহ পারভেজের কর্ণার থেকে জোড়ালো হেডে বিজেএমসিকে ১-১ এ সমতায় ফেরান।
সমতায় ফেরার পর ব্যবধান বাড়াতে দু’দলই বেশ কয়েকটি আক্রমণ রচনা করেছে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তারা লক্ষ্যে পৌঁছাতে না পারলেও সমতা নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয়। খেলায় বিভিন্ন স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা উভয় দলকে মুহুর্মুহু করতালী দিয়ে সাহস যুগিয়েছেন। খেলা শেষে জেবি প্রিমিয়ারলীগের মিডিয়া প্রধানের উপস্থিতিতে বিজেএমসি কোচ মিঃ মারমা প্রেস ব্রিফ করেন। এ সময় দলটির টিম ম্যানেজার আরিফুল হক চৌধুরী সাথে ছিলেন। এ সময় মিঃ মারমা বলেন, মোহামেডান নিশ্চয় বড় দল। এরপরও তাঁরা জয়ের আশা নিয়েই মাঠে নেমেছিলেন এবং শক্তি দিয়েই প্রতিযোগীতা করেছেন। এর পরও বেড লাক বলেই তিনি দাবী করেন। পরে মোহামেডানের কোচ কাজী জসিম উদ্দিন আহম্মেদ জসি প্রেস ব্রিফকালে বলেন, কিছু ভুলের কারণে এগিয়ে থেকেও বিজয় নিশ্চিত করা সম্ভব হয়নি। এ সব ভুল থেকে ভবিষ্যতে ভাল করার চেষ্টা করবেন বলে তিনি জানান। ময়মনসিংহে মোহামেডান ক্লাবের হাজার হাজার দর্শক মোহামেডান ঢাকার খেলা দেখে আশাহত হয়েছে এ ধরণের সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে কোচ জসি দর্শকদের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন।