| |

চলন্ত ট্রেনে পাথর নিক্ষেপ ও রেলপথে ময়লা-আজর্বনা ফেলায় বাধা দেয়ায় কর্মরত ওয়েম্যানদের প্রহার করেছে ফাতেমানগর স্টেশন পাশের লোকজন

স্টাফ রিপোর্টার ঃ চলন্ত আন্তনগর অগ্নিবীনা এক্সপ্রেস ট্রেনে পাথর নিক্ষেপে ও রেলপথের ওপর যতসব ময়লা আবর্জনা ফেলায় সংঘবদ্ধ বালকদের বাধা ও ধমকে দেয়ার কারনে অপরাধী বালকদের অভিভাবকরা রেলপথে কর্মরত ওয়েম্যানদের উপর হামলা চালিয়ে বেদম প্রহার করেছে। প্রহারে আহত হয়েছেন ময়মনসিংহ সেক্টরের ১৪ নং গ্যাং-এ কর্মরত রেলওয়েম্যান মোঃ সহিদ সরকার, মোঃ রতন মিয়া (বাবু) ও মোঃ বাবুল হোসেন বেপারী। প্রহার থেকে রক্ষা পান আহতদের সর্দার। রেলওয়ের বিরুদ্ধে এই অপরাধের ঘটনাটি ঘটানো হয়েছে গত বুধবার (১০ আগস্ট) দুপুর দেড়টার দিকে ঢাকা-ময়মনসিংহ রেলপথের ত্রিশাল উপজেলাধীন ফাতেমা নগর রেলস্টেশনের আপ সিগন্যালের কাছে ৩৮৪/৩-৪ নং খুঁটির মধ্যবর্তী স্থানে। ওই দিন ও সময়ে ময়মনসিংহ গামী আন্তনগর অগ্নিবীনা এক্সপ্রেস ট্রেনটি চলে আসায় লাইনে কর্মরত ওয়েম্যানরা পাশে সরে দাড়ায়। এসময় পাশের এলাকার ১০/১২ জন বালক দৌড়ে এসে চলন্ত ট্রেনের বগিতে পাথর ছুড়তে থাকে। ট্রেন চলে গেলে বালকরা দু’পাশের যতসব ময়লা আবর্জনা রেলপথের উপরে ফেলতে শুরু করে। ট্রেনে এভাবে পাথর নিক্ষেপ ও রেলপথে ময়লা আবর্জনা ফেলার কারনে দায়িত্বশীল ওয়েম্যানরা বালকদের বাধা দেন ও ধমক দেন। বালকদের ধমকে দেয়ার কারনেই ওদের অভিভাবকরা (১৪/১৫ জন) মুহুর্তেই তেরে এসে ওয়েম্যানদের বেদম প্রহার করে এবং প্রাণ নাশের হুমকি দেয়। তেরে আসা অভিভাবকদের মধ্যে আদিল (৩০) পিতা নূরু ও ফরহাদ (৩৫) পিতা কালাম  মারধর করে। বাকীরা দাঁড়িয়ে থেকে ঘটনা উপভোগ করে। এরূপে হাততোলায় কেউ কোন বাধা দেয়নি। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগনকে অবহিত করেছেন আহত ওয়েম্যানরা। তারা ওই এলাকায় কাজ করতে নিরাপত্তাহীনতা বোধ করছেন বলেও জানান। এব্যাপারে গতকাল শনিবার (১৩ আগস্ট) রেল থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে।