| |

ত্রিশালে রোপা আমন ধানের বাম্পার ফলন কৃষকের মাঝে ধান কাটার ধুম

রফিকুল ইসলাম শামীম : ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার ১২ ইউনিয়নে এবছর রোপা আমন ধান চাষে  সরকারের দেয়া লক্ষ্যমাত্রাকে ছাড়িয়ে এবছর বাম্পার ফলন হয়েছে। ত্রিশাল উপজেলায় সময়মত ধান পেকে যাওয়ায় উপজেলার সব কটি ইউনিয়নেই বেশ কয়েক দিন আগেই ধান কাটা শুরু হয়ে এখন সর্বত্রই কৃষকের মাঝে ধান কাটার যেন ধুম পড়েছে। ধান কাটার সাথে পাল্লা দিয়ে গ্রামের ঘরে ঘরে শুরু হয়েছে পিঠা উৎসব, তৈরী হচ্ছে নতুন ধানের নানান রকম খির পিঠা। ত্রিশাল কৃষি অফিস সূত্রে জানাযায়-এবছর ত্রিশাল উপজেলায় রোপা আমন চাষে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করা হয়েছিল ১৮ হাজার ৭ শত ৫০ হেক্টর জমি। এর মধ্যে উচ্চ ফলনশীল জাতের ধান চাষ হয়েছে ১৫ হাজার ৪শত ৫০ হেক্টর জমিতে ও স্থানীয় জাতের চাষ হয়েছে ৩ হাজার ৫০ হেক্টর জমিতে। লক্ষ্যমাত্রায় চেয়ে ২শত ৫০ হেক্টর জমিতে ধান চাষ কম হলেও ফলন ভাল হওয়ায় উৎপাদনের টার্গেট ছাড়িয়ে যাবে বলেই বলছেন কৃষি অফিস।
ত্রিশাল উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা দ্বিপক কুমার পাল জানান-ত্রিশাল উপজেলা মাছ চাষ অধ্যষিত এলাকা যে সব এলাকায় মাছ চাষের পুকুর বেশী রয়েছে সেসব এলাকায় এবার ইদুরে উপদ্রপ বেশী করেছে,এতে কিছু জায়গায় ইদুরে ধান নষ্ট করে ফেললেও এ মৌসুমে ত্রিশাল উপজেলায়  কোন রকম প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হওয়ায় এবং কৃষকদের মাঝে রোপা আমন ধানের সকল ইউনিয়নেই ভাল বীজ সরবরাহ,মাঠ পর্যায়ে কৃষি অফিসের কর্মকর্তারা কৃষকদের পরামর্শ দিয়ে সময়মত ধান ক্ষেতে সার ও কীট নাষক প্রয়োগ করার ফলে এবার অন্য বছরের চেয়ে ভাল ফলন হয়েছে। আর উপজেলার সর্বত্রই ভাল ফলন হওয়ায় এবছর আমাদের উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ৪৭ হাজার ৪শ ২০ মেট্রিক টন চাউলে উৎপাদনের যে লক্ষ্যমাত্রা ছিল সেই লক্ষ্যমাত্রাকে ভেদ করে ধারনা করা হচ্ছে ত্রিশাল উপজেলায় এবছর উৎপাদন ৬০ হাজার মেট্রিক টন ছাড়িয়ে যাবে।
এব্যাপারে ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু জাফর রিপন বলেন-আমি উপজেলার কয়েক জায়গায় ধান ক্ষেতে দাড়িয়ে থেকে দেখিছি এবার রোপা আমন ধানের ফলন ভাল হয়েছে,ফসলের মাঠে থোপা থোপা পাকা আধা পাকা ধানের ছড়া দেখে মনটা ভরে গেছে।       উপজেলার ধানীখোলা ইউনিয়নের আদর্শ কৃষক জসিম উদ্দিন জানান এবার আমি ৩ একর জমিতে রোপা আমন ধানের আবাদ করেছি-তার মধ্যে প্রায় ১ একর জমির ধান কেটেছি। তাতে আমার আশাতীত ফলন হয়েছে,কাটা প্রতি উৎপাদন হয়েছে ৪ মনের উপরে বাকী ২ একর জমিতেও অনুরোপ ধান হবে। ত্রিশাল সদর ইউনিয়নের ছলিমপুর গ্রামের কৃষক আব্দুল হালিম জানান এবার আমি আমার আড়াই একর জমিতে রোপা আমন ধানের আবাদ করেছি। আমার প্রতিটা ধান ক্ষেতেই বাম্পার ফলন হয়েছে। শুধু আমার ক্ষেতেই এবার ভাল ফলন হয়নি এবার আমাদের গ্রামের সকল কৃষকের ক্ষেতেই ধানের ভাল ফলন হয়েছে। ভাল ভাবে ধান কেটে ঘরে তুলতে পারলে অন্যান্য বছরের চেয়ে লাভ এবার অনেক বেশী হবে।
এদিকে ধান কাটার সাথে পাল্লা দিয়ে গ্রামের ঘরে ঘরে শুরু হয়েছে পিঠা উৎসব, তৈরী হচ্ছে নতুন ধানের নানান রকম খির পিঠা,ঘরে ঘরে চলছে নানান ধরনের পিঠা বানানোর প্রতিযোগিতা। উপজেলার মঠবাড়ী ইউনিয়নের অলহরী ইজারাবন্দ গ্রামের কামাল হোসেন জানান-আমাদের আশপাশের বাড়ীতে নতুন ধানের পিঠা বানানো দেখে কয়েক দিন যাবৎ আমাদের বাড়ীতেও নতুন ধানের মেরা পিঠা বাপা পিঠা,নুন মরিচের পিঠা,চিতই পিঠা বানানো হচ্ছে। ইতোমধ্যে  সেই পিঠা পর্যায়ক্রমে আমি বহন করে আমার সব বোন ও আত্বীয় স্বজনদের বাড়ীতে বিতরন করে এসেছি।