| |

ফুলপুর হাসপাতাল গেইট যেন মরণ ফাঁদ

মোঃ আতিকুর রহমান আতিক : ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স  হাসপাতাল গেইটটি মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। প্রায় প্রতিদিনই ছোট বড় দূর্ঘটনার শিকার হচ্ছে এখানে জরুরী সেবা নিতে আসা জনসাধারণ। যারা অসুস্থ্য রোগী নিয়ে চিকিৎসা সেবা নিতে আসেন, তাদেরকেই আহত হয়ে পড়ে থাকতে হয় হাসপাতালের বিছানায়। ফুলপুর উপজেলা সহ পার্শ্ববর্তী কয়েকটি উপজেলা থেকে প্রতিদিন শত শত মানুষ এখানে চিকিৎসা সেবা নিতে নিতে আসেন। এতে প্রচুর লোক সমাগম (১ম পাতার পর) হয়। কিন্তু রাস্তা পারাপারের সময় সকলকে পরতে হয় মহা বিড়ম্বনায়। জরুরী রোগী নিয়ে হাসপাতালে প্রবেশ করতে, জরুরী ঔষধ কিনতে এবং অন্যান্য প্রয়োজনে প্রতিনিয়ত রাস্তা পারাপার করতে হয়। এটি ফুলপুর শহরের প্রবেশ ও বাহির মুখ হওয়ায় যানবাহন গুলোও বেপরোয়া হয়ে পড়ে। ফলে ময়মনসিংহ- হালুয়াঘাট সড়কের ফুলপুর হাসপাতাল গেটের সামনে সৃষ্ট হয় দূর্ঘটনার। শিশু ও বয়স্করা সবচেয়ে বেশী দূর্ঘটনার শিকার হচ্ছে। এখানে কোন প্রকার গতিরোধক বা জেব্রা ক্রসিং না থাকায় দূর্ঘটনা রোধ করা সম্ভব হচ্ছে না। যদিও দুর্ঘটনার পর স্থানীয় লোকজন বেশ কয়েকবার গতি রোধক স্থাপনের প্রতিবাদী হয়ে উঠে। পরবর্তীতে গতি রোধকের আশ্বাস মিললেও তা আজও বাস্তবায়ন হয়নি। এতে এলাকাবাসি ও ভোক্তভোগীদের মনে ক্ষোভের সঞ্চার হচ্ছে। আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. প্রাণেশ চন্দ্র পন্ডিত জানান, জন সাধারণের নিরাপদে হাসপাতালে আসা যাওয়া এবং জরুরী ঔষধ ক্রয় করার জন্য রাস্তা পারাপার করতে হয়। তাই গতি রোধক বা জেব্রা ক্রসিং অতি গুরুত্বপুর্ণ বিষয়। আমরা এ ব্যাপারে প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিদের সাথে এবং উপজেলা মাসিক সমন্বয় মিটিংয়ে বিষয়টি বেশ কয়েকবার উপস্থাপন করেছি।