| |

সাংবাদিক সম্মেলনে জেলা প্রশাসক : তিনদিন ব্যাপী উদ্ভাবনী মেলা শুরু আজ

স্টাফ রিপোর্টার ঃ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একসেস ইনফরমেশন (এটুআই) প্রোগ্রামের সহায়তায় ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসন এর উদ্যোগে জিমনেসিয়াম এবং জিমনেসিয়াম প্রাঙ্গনে তিনদিন ব্যাপী ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার অয়োজন করা হয়েছে।  এ মেলা উপলক্ষে গতকাল জেলাপ্রশাসক সম্মেলন কক্ষে এক সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন জেলা প্রশাসক মোঃ খলিলুর রহমান। এসময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ মোহসিন উদ্দিন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা) মোঃ আঃ লতিফ, ডিডিএলজি মোঃ নূরুল আলম, প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ, জাতীয় ও স্থানীয় পত্রিকার সাংবাদিকগন।
তিনদিন ব্যাপী আয়োজিত এই ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার উদ্বোধনী দিন আজ ২৬ জানুয়ারী বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯ টায় টাউন হল থেকে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালী অনুষ্ঠিত হবে। মেলার উদ্বোধন করবেন প্রধান অতিথি ধর্মমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ অধ্যক্ষ মতিউর রহমান। এই র‌্যালীতে বিভিন্ন সরকারী ও বেসরকারী প্রতিষ্ঠান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, স্কাউট, গালর্স গাইড, রোভার স্কাউটসহ বিভিন্ন সংগঠন অংশ গ্রহণ করবে।
মেলার ২য় দিন ২৭ জানুয়ারী শুক্রবার সকাল ১০ টায় সেমিনার, দুপুর ৩ টায় উপস্থিত বক্তৃতা ও সন্ধ্যা ৬ টায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।
উদ্ভাবনী মেলার সমাপনী দিন ২৮ জানুয়ারী শনিবার সকাল ১০ টায় বিতর্ক প্রতিযোগিতা, সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পুরস্কার বিতরণ। এ দিন প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদ এমপি।
ডিজিটাল বাংরাদেশ বিনির্মানে ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলা সেবা প্রদানকারী ও গ্রহণকারীর মধ্যে সংযোগ স্থাপন করবে। তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে সহজে, দ্রুততম সময়ে এবং স্বল্প খরচে জনগনের দোরগোড়ায় নাগরিক সেবা প্রদান করার সেতুবন্ধন রচনা করা ও বিভিন্ন সরকারী বেসরকারী সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে উদ্ভাবন এবং সৃজনশীলতার নতুন মাত্রা সৃষ্টি করার লক্ষ্যে সরকারের পক্ষ হতে বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলায় চারটি বিষয়ভিত্তিক প্যাভিলিয়নের মাধ্যমে নাগরিক সেবা প্রদান কার্যক্রম  সমুহ উপস্থাপন করা হবে।
প্যাভিলিয়ন-১ এ ই-সেবা সম্পর্কে তথ্য উপস্থাপনের পাশাপাশি ই-পর্চা, রেলওয়ের টিকিট, বিআরটিএর লাইসেন্স, পোস্টাল বিভাগের সেবা, পাসপোর্টসহ কৃষি শিক্ষা ও স্বাস্থ্য সম্পর্কিত তথ্য ও সেবা গ্রহণের ব্যবস্থা থাকবে।
প্যাভিলিয়ন-২ এ ডিজিটাল সেন্টারের সেবাসমূহের তথ্য উপস্থাপনের পাশাপাশি এজেন্ট ব্যাংকিং কার্যক্রমের আওতায় সকল ব্যাংকিং সেবা এবং রুরাল ই-কমার্স কার্যক্রমের আওতায় অনলাইনে পণ্য ক্রয়-বিক্রয়ের সেবা মেলা প্রাঙ্গণ হতে গ্রহণের সুযোগ থাকবে।
প্যাভিলিয়ন-৩ এ স্থানীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষা বিষয়ক নতুন উদ্ভাবন ও এটুআই প্রকল্পের শিক্ষা সংশ্লিষ্ট উদ্ভাবনী উদ্যোগ এবং সরকারের দক্ষ জনবল ও কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে গৃহিত পদক্ষেপসমুহ উপস্থাপন করা হবে।
জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে উদ্ভাবনী মেলায় ঝড়ষাব-ধ-ঞযড়হ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে।
প্যাভিলিয়ন-৪ এ এই প্রতিযোগিতায় বিভিন্ন নাগরিক সমস্যা বিষয়ে তরুন উদ্ভাবক তাদের প্রস্তাবিত সমাধানের প্রটোটাইপ উপস্থাপন করবেন।