| |

জাতির পিতার ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষনকে জাতীয় ভাষন ও ওই দিনকে জাতীয় ভাষন দিবস ঘোষনার দাবী

নিজস্ব সংবাদদাতা  ঃ  ভালুকা উপজেলায় শুরু হল “বঙ্গবন্ধুর ৭ ই মার্চের ভাষন উৎসব”।  উপজেলা কিন্ডার গার্টেন, প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ের ৪শ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের লক্ষাধিক শিক্ষার্থীর অংশগ্রহনে এ ঐতিহাসিক ভাষন প্রদান নিয়ে বিতর্ক প্রতিযোগীতার মাধ্যমে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের পেক্ষাপট, স্বাধীনতা যুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ ই মার্চের ভাষনের সঠিক তাৎপর্য সম্পর্কে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের জ্ঞানার্জনের লক্ষেই উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর ৭ ই মার্চের ভাষন উৎসবের আয়োজন। বৃহস্পতিবার বিকালে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে পরিষদের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে ভাষন উৎসব নিয়ে মত বিনিময় কালে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ কামরুল আহসান তালুকদার উল্লেখিত বিষয়টি অবহিত করেন। আজ  শুক্রবার থেকে কিন্ডার গার্টেন, প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ে তিনটি স্তরে বিতর্ক প্রতিযোগীতা শুরু হয়ে ২০ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত তিন পর্যায়ের ইউনিয়ন ও উপজেলা পর্যায়ের বিতর্ক শেষে চুড়ান্ত প্রতিযোগীতার জন্য ৬টি দল নির্বাচন করবেন। ৭ মার্চ ভালুকা ডিগ্রী কলেজ মাঠে লক্ষাধিক শিক্ষার্থীর উপস্থিতিতে তিনটি গ্রুপের চুড়ান্ত প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত হবে। ওইদিন লক্ষ কন্ঠে জাতির পিতা “বঙ্গবন্ধুর ৭ ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষনকে জাতীয় ভাষন ও ৭ই মার্চকে জাতীয় ভাষন দিবস ঘোষনার দাবী জানানোর উদ্যোগ গ্রহন করা হয়েছে। ই্উএনও কামরুল আহসান তালুকদার উল্লেখিত জাতীয় ভাষন ও ভাষন দিবস ঘোষনার অনুরোধ জানিয়ে গত ২৫ জানুয়ারী জেলা প্রশাসক ময়মনসিংহের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটি পত্র প্রেরণ করেছেন।  মত বিনিময় অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আব্দুল্লাহ আল জাকির, শিক্ষা অফিসার মোঃ শহীদুজ্জামান, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ সাইফুল ইসলাম, ভালুকা ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আবুল কাশেম নুরী, জামিরাপাড়া এসএম উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জাকির হোসেন বজলু,বান্দিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আইয়ুব হোসেন, চাপরবাড়ী দাখিল মাদ্রাসার সুপার মোঃ মোবাশ্যারুল ইসলাম সবুজ, বিরুনীয়া দাখিল মাদ্রাসার সুপার মোহাম্মদ আলী প্রমুখ। মত বিনিময় শেষে শিক্ষা অফিসার মোঃ শহীদুজ্জামান, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ সাইফুল ইসলামের কাছে ৪ শত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু ৭ ই মার্চের ভাষনের সিডি সরবরাহ করা হয়।