| |

অনাহারে অর্ধাহারে মানবেতর জীবন যাপন করছে এতিম কিশোর ছেলে শ্রাবণকে নিয়ে কেন্দুয়ার সেই বিধবা নূরেছা আক্তার

মোঃ মহিউদ্দিন সরকার ঃ  নেত্রকোণার কেন্দুয়া উপজেলার নওপাড়া গ্রামের মৃত ফটিক চাঁনের বিধবা স্ত্রী নূরেছা আক্তার ও এতিম কিশোর ছেলে শ্রাবণের প্রায় ৩০ কাঠা সম্পত্তি জাল দলিলের মাধ্যমে ভোগদখল করে আসছে এলাকার পার্শ্ববর্তী রাজিবপুর গ্রামের সৎ মেয়ের ঘর জামাই আমিরুল ইসলাম। এ ব্যাপারে ০২/০১/২০১৭ ইং তারিখে নেত্রকোণার চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে নেত্রকোণায় ৪৬৭/৪৬৮ ধারা মোতাবেক মামলা দায়ের করার পর ও এ নিয়ে কেন্দুয়ায় এতিম ও বিধবার ৫০ লক্ষাধিক টাকার সম্পত্তি ভোগদখলের অভিযোগ ও আদালতে মামলা এই শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পর ভূমিলোভী ভূমি দস্যূ ভয়ংকর প্রকৃতির আমিরুল ইসলাম ও তার সহযোগীরা নির্যাতন করছে বলে জানা যায়। এ ব্যাপারে ভোক্তভোগী নূরেছা আক্তার স্বদেশ সংবাদকে জানায়, আদালতে মামলা হওয়ার পর তার দলবল নিয়ে নানাভাবে আমাকে ভয়ভীতি ও প্রাণ নাশের হুমকী দিচ্ছে। মামলা তুলে নেওয়ার জন্য আমার উপর চাপ সৃষ্টি করছে। সবকিছু হারিয়ে নিঃশ্ব হয়ে সু-বিচার পাওয়ার জন্য দ্বারে দ্বারে ঘুরছে নূরেছা আক্তার। এমনকি বাড়িতে রক্ষিত ধান-চাল আমিরুলের লোকজন নিয়ে গেছে এমন অভিযোগ করে নূরেছা আক্তার বলেন, আমি এখন অনাহারে অর্ধাহারে মানবেতর জীবন যাপন করছি।
এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক, নেত্রকোণা ও পুলিশ সুপার মহোদয়সহ সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগীতা চাইছে। নির্যাতন ও মানবেতর জীবন যাপন করার বিষয়টি জানতে চাইলে কেন্দুয়া থানা ওসি মোঃ সিরাজুল ইসলাম এ প্রতিবেদককে জানান, আমি আন্তরিক ভাবে খোঁজ খবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবো।