| |

ভবন না থাকায় ইউনিয়ন পরিষদ কার্যক্রম ব্যাহত!

সৌমিন খেলন : স্থায়ী কোনো ভবন না থাকায় ব্যাহত হচ্ছে ইউনিয়ন পরিষদের সার্বিক কার্যক্রম! পরিষদ থেকে প্রাপ্য সেবা বঞ্চিত হচ্ছেন ইউনিয়নবাসী। বিব্রতকর পরিস্থির স্বীকার হচ্ছেন পরিষদের চেয়ারম্যান। নেত্রকোনার পূর্বধলা উপজেলার ১২ নং বৈরাটি ইউনিয়ন পরিষদের এ পরিস্থির কথা জানালেন, চেয়ারম্যান কলেজ শিক্ষক মো. রেজাউল ইসলাম দিপু। তিনি বলেন, ‘দিননগর গ্রামে একটি ঘরে দুইটি রুম নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদের অস্থায়ী কার্যালয় করা হয়েছে। কিন্তু স্থায়ী কোনো ভবন না থাকায় ইউনিয়ন পরিষদের সার্বিক কর্মকান্ডে দারুণভাবে ব্যত্যয় ঘটছে। বাজারের মধ্যে সংকুলান জায়গায় খোলামেলা অবস্থায় আর যাইহোক অফিসিয়াল কাজের পরিবেশ হতে পারেনা। কাজের জন্য একটি পরিবেশ থাকতে হয়। সঠিক পরিবেশ পেলে মানুষের কর্ম তৎপরতা বৃদ্ধি পায়। কিন্তু আমার ইউনিয়ন পরিষদে তথ্য, সচিব, ইউপি সদস্য, ভেটেরিনারি চিকিৎক, কৃষি, মৎস্য, শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা সব ধরনের কার্যক্রমে ব্যাঘাত ঘটছে। একটি সভা কক্ষের অভাবে জনপ্রতিনিধিরা একসাথে মিলিত হতে পারছেনা।’ কৃষক নুরুল, চাঁন মিয়া বলেন, ‘মাঠ পর্যায়ে কৃষি কর্মকর্তা না থাকায় আমরা কোনো পরামর্শ পাই না। সব কথা তো মুঠোফোনে শেষ করা যায়না সেক্ষেত্রে সদরে গিয়ে কৃষি কর্মকর্তার পরামর্শ গ্রহণ করতে গেলে যাতায়াত খরচ ও অনেক সময় ব্যয় হয়ে যায়।’ সাবিহা বেগম, নুরুন্নাহার ও নীলুফা ইয়াসমিন বলেন, ‘আমরা গরীব মানুষ প্রাইভেট ডাক্তার দেখাতে পারি না। আশেপাশে নেই কোনো কমিউনিটি ক্লিনিক। শারীরিক কোনো সমস্যা হলে ইউনিয়ন পরিষদের চিকিৎসা সেবা ও পরামর্শ থেকেও বঞ্চিত হচ্ছি।’ এমনসব সমস্যার কথা তোলে ধরেন ইউনিয়নবাসীসহ সংশ্লিষ্ট জনপ্রতিনিধিরা। এদিকে স্থায়ী ভবন না থাকার বিষয়টি মাসিক সমন্বয় সভায় জেলা প্রশাসক (ডিসি) ড. মুশফিকুর রহমানকে জানানো হয়েছে বলেও দাবি করেন চেয়ারম্যান দিপু। জেলা প্রশাসক (ডিসি) ড. মুশফিকুর রহমান বলেন, ‘ইউনিয়ন পরিষদের মালিকানাধীন জায়গা নির্ধারণ করে দিলে পক্রিয়া অনুযায়ী ভবন নির্মান হবে।’