| |

টিকাদান কর্মসূচি বাদ দিয়ে কর্মবিরতিতে ফুলবাড়িয়ায় স্বাস্থ্য সহকারীরা

মো: আব্দুস ছাত্তার : স্বাস্থ্য পরিদর্শকদের ১১ তম গ্রেড, সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক কে ১২তম গ্রেড ও স্বাস্থ্য সহকারীদের ১৩ তম গ্রেড প্রদান করে নিয়োগবিধি সংশোধন বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবিতে গতকাল বৃহস্পতিবার কর্মবিরতি পালন করে ফুলবাড়িয়া উপজেলায় কর্মরত স্বাস্থ্য সহকারিরা।
উল্লেখ্য সত্তর দশক থেকে পরীক্ষামুলকভাবে বসন্ত ও ম্যালেরিয়া রোগ নিয়ন্ত্রণের দায়িত্বে এককভাবে প্রদান করেন স্বাস্থ্য সহকারীদের উপর। স্বাস্থ্য সহকারীদের নিরলস প্রচেষ্টায় এ সমস্ত রোগ বিলুপ্তির পথে। ১৯৭৯ সালে ৭ এপ্রিল চালু করা হয় সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচি ইপিআই। এই কর্মসূচির আওতায় ১,২০,০০ আউটরিচ টিকাদান কেন্দ্রে দায়িত্ব এককভাবে ন্যস্ত করা হয় স্বাস্থ্য সহকারী সহকারীদের উপর। সারাবিশ্বে টিকাদানে রোল মডেল বাংলাদেশ। জাতিসংঘ কর্তৃক ভ্যাকসিন হিরো, স্বাস্থ্যসেবায় গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য প্রধানমন্ত্রীর সাউথ-সাউথ পুরস্কার, এমডিজি গোল অর্জন করেন।
এছাড়া ১০ টি মারাত্মক রোগ যক্ষা, পোলিও, ধনুষ্টংকার, হুপিংকাশী, ডিপথেরিয়া, হেপাটাইটিস-বি, হেমোফিলাস ইনফ্লুয়েঞ্জা, নিউমোনিয়া, হাম ও রুবেলা টিকা প্রদান করে তাকে স্বাস্থ্য সহকারীরা। ২০১৩ সালের ২৫ জানুয়ারি ৫ কোটি ২০ লাখ শিশুকে টিকা সফলভাবে প্রদান করে তারা। সম্ভাব্য যক্ষ্মা রোগী প্রেরন, স্কুলের কৃমি নিয়ন্ত্রণ, ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন, কমিউনিটি ক্লিনিকের সেবা, কন্যা কালীন সময়ে বিদেশ থেকে আগত লোকদেরকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা, করোনা স্যাম্পল কালেকশন ইত্যাদি কর্মযজ্ঞ পালন করার পরও কর্তৃপক্ষের লিখিত চুক্তি বাস্তবায়ন না করায় অনির্দিষ্টকালের জন্য সারা বাংলাদেশের প্রত্যেকটি ওয়ার্ড, গ্রাম, উপজেলা, জেলা বিভাগ, কর্মবিরতি একসাথে পালন করছে। সারা বাংলার ন্যায় ফুলবাড়িয়া স্বাস্থ্য সহকারী এসোসিয়েশন, স্বাস্থ্য বিভাগীয় পরিদর্শক সমিতি, স্বাস্থ্য বিভাগীয় কর্মচারী এসোসিয়েশন ও বাংলাদেশ হেলথ ইনস্পেক্টর সেন্ট্রারাল এসোসিয়েশন। যতক্ষণ পর্যন্ত দাবী জিও প্রকাশ না করা হবে ততক্ষণ পর্যন্ত কর্মসূচি চলবে বলে নেতৃবৃন্দ জানিয়েছেন। এ দিকে আউট্রিচ টিকাকেন্দ্রে শত শত বাচ্চাদেরকে টিকা না দিতে না পেরে শিশুদের অভিভাবকরা বাড়িতে ফিরে যান। অবিলম্বে তারা এ সমস্যার সুষ্ঠু সমাধান দাবি করেছেন। হাম-রুবেলা ক্যাম্পেইন স্বাস্থ্য সহকারীদের কর্মবিরতি জন্য বন্ধ রয়েছে। অতি দ্রুত সমস্যার সমাধান না করলে হাজার কোটি টাকার হাম-রুবেলার ভায়াল নষ্ট হয়ে যাবে বলে অনেকেই আশঙ্কা করেছেন। ফুলবাড়িয়ায় কর্মবিরতিতে নের্তৃত্ব দিচ্ছেন দাবী বাস্তবায়ন কমিটির আহ্বায়ক ইনচার্জ আ: মান্নান, সদস্য সচিব রিয়াজ উদ্দিন, মুখপাত্র শাকিল চৌধুরী।