| |

মেলান্দহে নদী-প্রকৃতি ও চরাঞ্চলের জীবনমানোন্নয়ন শীর্ষক আলোচনা

মেলান্দহ (জামালপুর) সংবাদদাতা॥জামালপুরের মেলান্দহে নদী-প্রকৃতি ও চরাঞ্চলের জীবনমানোন্নয়ন শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (১ অক্টোবর) বিকল ৫টায় পাঁচনংচর বাজার মাঠে অনুষ্ঠিত হয়।
রিপোর্টার্স ইউনিটি এর আয়োজনে মলান্দহ রিপোর্টার্স ইউনিটির সহ-সভাপতি-খবরপত্রের প্রতিনিধি ফজলুল করিম এবং বশেফমুবিপ্রবির শিক্ষার্থী কাওসার আহমেদ সুকণ সঞ্চালনায় ইউনিটির সভাপতি ও দৈনিক ইত্তেফাকের সংবাদদাতা শাহ্ জামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় মূখ্য আলোচক ছিলেন-বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের (বশেফমুবিপ্রবি) মৎস্য বিভাগের চেয়ারম্যান ড. আঃ সাত্তার। বিষয় ভিত্তিক আলোচনা করেন-বশেফমুবিপ্রবি’র সহকারি অধ্যাপক, লেখক-গবেষক ড. মাহমুদুল হাসান, শেখ কামাল সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ সফিউল আলম স্বপন, বিটিভির জামালপুর সংবাদদাতা-লেখক-কবি মোস্তফা বাবুল, জামালপুর জেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি-পরিবেশ আন্দোলন জামালপুর শাখার সাধারণ সম্পাদক ও যায়যায়দিনের প্রতিনিধি এডভোকেট ইউসুফ আলী, বীরমুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেন, বাংলাদেশ বেতার-বিটিভির কণ্ঠশিল্পী বিপ্লব মন্ডল, শহীদ সমর থিয়েটারের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক-শিল্পকলা একাডেমির পুরস্কার প্রাপ্ত নাট্যকর্মী আবুল মুনসুর খান দুলাল, শিক্ষানুরাগি এম.এ. সাত্তার মাস্টার, বশেফমুবিপ্রবির গবেষক শিক্ষার্থী ও দৈনিক অধিকারের সাংবাদিক এস.এম. আলফাহাদ, বিশ^ব্যাংকের এসইপি-সিসিডির আওতায় কুমিল্লা প্লাবন ভূমি প্রকল্পের টেকনিক্যাল অফিসার কৃষিবিদ মো. লেমন মিয়া, মাদারগঞ্জ খাজা ইউনুছ আলী (রহঃ) ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক-নদী ও প্রকৃতি গবেষক-লেখক গোলাম জাকারিয়া, এনটিভির জেলা প্রতিনিধি আসমাউল আসিফ, চরপলিশা জেএল হাই স্কুলের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আলহাজ সৈয়দুজ্জামান, টুপকারচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান-নাট্যাভিনেতা শিক্ষক ফজলুল করিম লিচু, সাধুপুর হুমায়ুন কবির টেকনিক্যাল ইনস্টিটিউট ও নার্গিস জিয়াউল হক স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হুমায়ুন কবির সোনাহার, দৈনিক সংবাদের এজিএম (সাকুলেশন) শওকত আলী সেজু প্রমুখ।

বক্তরা সভায় প্রযুক্তি কেন্দ্রিক নদী ও চরাঞ্চল গবেষণা ইনস্টিটিউট, মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট, মাছের অভয়াশ্রম, রিভার টুরিজম স্থাপন, চরাঞ্চলের জন্য সহনীয় চাষাবাদ পদ্ধতি উদ্ভাবন, চরের সম্পদকে জাতীয় সম্পদে রূপ দেয়াসহ রাষ্ট্রেীয় বিভিন্ন স্তরে কৃষকের কোটা সংরক্ষণের উপর গুরুত্বারোপ করা হয়।