| |

অপহৃত স্কুলছাত্রী শিপা আক্তারকে উদ্ধার করল পিবিআই, ময়মনসিংহ

স্টাফ রিপোর্টার : অপহৃত স্কুলছাত্রী শিপা আক্তার (১৫)’কে উদ্ধার করল পিবিআই, ময়মনসিংহ গতকাল ১২ জানুয়ারী (বুধবার) সকাল ৭টায় ময়মনসিংহ জেলার ঈশ্বরগঞ্জ থানাধীন এনায়েতপুর (খানপুর) সাকিনস্থ বিবাদী রুমানের বাড়ী হতে অপহৃত স্কুলছাত্রী শিপা আক্তার (১৫)কে উদ্ধার করে। ভিকটিম শিপা আক্তার, পিতা-মোঃ সজিম উদ্দিন, সাং-এনায়েতপুর (খানপুর), থানা-ঈশ্বরগঞ্জ, জেলা-ময়মনসিংহ স্থানীয় সোহাগী ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী। বিবাদী রুমান (২৫), পিতা-মৃত আঃ মালেক, সাং-এনায়েতপুর (খানপুর), থানা-ঈশ্বরগঞ্জ, জেলা-ময়মনসিংহ ভিকটিম শিপা আক্তার স্কুলে আসা যাওয়ার পথে প্রায় সময় উত্যক্ত করত। ভিকটিম বিষয়টি তার বাবাকে জানালে ভিকটিমের বাবা বিবাদী রুমানের বড়ভাই ও চাচাদের জানিয়ে বিচার প্রার্থী হলে এতে বিবাদী রুমান ভিকটিমের প্রতি বিদ্বেষভাব পোষন করতে থাকে। এরই ধারাবাহিকতায় গত ৩১ অক্টোবর/২১ইং সকাল ১০টার সময় ভিকটিম স্কুলে যায় এবং কাশ শেষে স্কুল হতে বাড়ী ফেরার সময় একই তারিখ দুপুর ১২টার সময় স্কুলের গেইটের সামনে পাকা রাস্তার উপর পৌছামাত্রই বিবাদী রুমান ও তার সহযোগিদের সহায়তায় ভিকটিমকে জোরপূর্বক সিএনজি যোগে ঈশ্বরগঞ্জের দিকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। এই সময় শিপা আক্তারের ডাক-চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে এসে সিএনজির পিছু পিছু দৌড়িয়ে ভিকটিমকে অপহরণের কবল হতে উদ্ধার করতে ব্যর্থ হয়। এই ঘটনা ভিকটিমের বাবা শুনে ভিকটিম শিপা আক্তারকে উদ্ধারের জন্য অনেক জায়গায় খোঁজাখুজি করে কোথাও ভিকটিমের সন্ধান পায়নি। ভিকটিমের বাবার ধারনা বিবাদী রুমান ও তার সহযোগিরা মিলে ভিকটিমের মারাত্বক ক্ষতি সাধন করতেছে। উক্ত ঘটনায় ভিকটিমের বাবা মোঃ সজিম উদ্দিন বাদী হয়ে বিবাদী রুমান ও তার সহযোগিদের বিরুদ্ধে ঈশ্বরগঞ্জ থানার পিটিশন মামলা নং-২১৫/২০২১, ধারা-নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সং/০৩) এর ৭/৩০ বিজ্ঞ আদালতে দায়ের করেন।