| |

১৪ ফেব্রুয়ারি স্বৈরাচার প্রতিরোধ দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্টিত

স্টাফ রিপোর্টার : ১৪ ফেব্রুয়ারি স্বৈরাচার প্রতিরোধ দিবস উপলেক্ষ সোমবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে ময়মনসিংহে মদন বাবু রোডস্থ জাতীয় সমাজ তান্ত্রিক দল জাসদ কার্যালয়ে (১৯৮৩ সালের ১৪ ফেব্র“য়ারি স্মরণে) এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে ময়মনসিংহের সাবেক ছাত্রনেতৃবৃন্দ আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন সাবেক ছাত্রনেতা জেলা জাসদ সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট সাদিক হোসেন। সাবেক ছাত্রনেতা জেলা জাসদ যুগ্ম সম্পাদক এডভোকেট নজরুল ইসলাম চুন্নুর সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় সাবেক ছাত্রনেতা এডভোকেট এমদাদুল হক মিল্লাত, মাহবুল আলমফরিদ, রতন সরকার সৈয়দ শফিকুল ইসলাম মিন্টু, আবু সাইদ দীন ইসলাম ফকরুল, হোসাইন জাহাঙ্গীর বাবু, আব্দুল মোতালেব লাল, মনিরা বেগম অনু, গোলাম ফারুক লিটন, মীর শহীদ উদ্দিন, শাহ শওকত ওসমান লিটন, কায়সার ফেরদৌস, আব্দুর রব মোশারফ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
১৪ ফেব্র“য়ারি স্বৈরাচার প্রতিরোধ দিবসে সাবেক ছাত্রনেতৃবৃন্দ বলেন, সামরিক স্বৈরশাসক লেজেহুমু এরশাদের শিামন্ত্রী ড. মজিদ খানের কুখ্যাত শিানীতি বাতিলের দাবীতে ১৯৮৩ সালের ১৪ ফেব্র“য়ারি ঢাকায় ছাত্রসংগ্রাম পরিষদের মিছিলে পুলিশ গুলি করে জয়নাল, জাফর, মোজাম্মেল, কাঞ্চন, দীপালি সাহাসহ আরও অনেককে গুলি করে হত্যা করে। এরই ধারাবাহিকতায় ডা. মিলন, ফিরোজ-জাহাঙ্গীরদের রক্তের তপ্ত স্রোতে ১৯৯০ এর ৬ ডিসেম্বর এরশাদের পতন ঘটে।
আলোচনা সভায় নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, স্বাধীন বাংলাদেশে সকল আন্দোলনের মূল বিষয় ছিল গণতন্ত্রের শক্তিশালী, স্হাসী ও প্রাতিষ্ঠানিক রুপ দেয়া। সেই ল্য অর্জনে শহীদদের আত্মদান পুরোপুরি সফল হয়নি। নেতৃবৃন্দ শহীদদের রক্তদানকে সফল করে তোলার প্রতি গুরুত্ব আরোপ করে তাদের বক্তব্য উপস্থাপন করেন।
অনুষ্ঠানের শুরুতেই সকল শহীদদের স্মরণে দাড়িঁয়ে ১ মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।