| |

রিয়াদ হত্যা মামলার ২ আসামী গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১৪

স্টাফ রিপোর্টাল : রিয়াদ হত্যা মামলার দুইজন এজাহারনামীয় আসামী মোঃ জিলানী ভুঞা (৩০) পিতা- মৃত নাছির উদ্দিন ভুঞা @ নাসু ভুঞা সাং- ক্ষীরদাসাদী ও মোঃ রাসেল (২৫) পিতা-মৃত কাজী আলী হোসেন সাং-ক্ষীরদাসাদী উভয়থানা-আড়াইহাজার, জেলা- নারায়ণগঞ্জদ্বয়কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১৪। গোপন সংবাদ এর ভিত্তিতে র‌্যাব-১৪, ময়মনসিংহ এর একটি আভিযানিক দল গত ২৫ ফেব্র“য়ারি রাত সোয়া ১টায় নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়া থানা এলাকা হতে তাদের গ্রেফতার করে। তারা নারায়ণগঞ্জ জেলার আড়াইহাজার থানার মামলা নং-২৩/৫৫ তাং- ১৬/০২/২০২২ ইং, ধারা-৩০২/২০১/৩৪ পেনাল কোড এর এজহারভুক্ত আসামী।
উল্লেখ্য, গত ১৪/০২/২০২২ ইং সোমবার নারায়ণগঞ্জ জেলার আড়াইহাজার থানার শালমদী গ্রামের রব হাজীর একটি পুকুর ভাড়া নিয়ে মাছ চাষ করে আসছিলো একই গ্রামের জিলানী, আরমান, ফয়সাল, রমজান এবং রাসেল। গত ১৪ ফেব্র“য়ারি ওই গ্রামের বাবুল হোসেনের ছেলে রিয়াদ (৭) সহ তার কয়েকজন বন্ধু মিলে পুকুরটিতে মাছ ধরতে যায়। এসময় পুকুরের মৎস্যচাষী জিলানী শিশুদেরকে ধাওয়া করলে রিয়াদের বন্ধুরা দৌড়াদৌড়ি করে পালিয়ে যায়। এরপর থেকে রিয়াদ নিখোজ ছিলো। এর দুইদিন পর অর্থাৎ ১৬ ফেব্র“য়ারি স্থানীয় হাসান আলীর স্ত্রী সাফিয়া বেগম পুকুরে গোসল করতে নামলে শিশু রিয়াদ এর মৃতদেহ ভেসে উঠতে দেখেন। এরপর পুকুর থেকে রিয়াদের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। মৃত রিয়াদের মুখ ও দেহে আঘাতের চিহ্ন ছিলো। এ ঘটনায় বুধবার রাতেই মৃত রিয়াদের বাবা নারায়ণগঞ্জ জেলার আড়াইহাজার থানার খিরদাসাদী গ্রামের নাসু ভূঁইয়ার ছেলে জিলানী (৩০), কাজী কবিরের ছেলে আরমান (২৬), কাজী মোবারকের ছেলে ফয়সাল (২৮), নাঈমের ছেলে রমজান (২৫) ও কাজী আলী হোসেনের ছেলে রাসেলসহ (২৮) অজ্ঞাত আরও দুই-তিনজনকে আসামী করে আড়াইহাজার থানায় হত্যা মামলা করেন। পরবর্তিতে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দেশি অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে শালমদী এলাকার ২০০ থেকে ৩০০ জন লোক বৃহস্পতিবার অর্থাৎ ১৭ ফেব্র“য়ারি সকাল ৮টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত খিরদাসাদী গ্রামে হামলা চালায়। পরে আড়াইহাজার থানা, ফাঁড়ি ও নারায়ণগঞ্জ থেকে বিপুল সংখ্যক পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে হামলাকারীরা সটকে পড়ে। হামলায় নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশের চারজন সদস্য আহত হয়। গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।